জুতা পালিশের ক্রীম দৌত করার পরেও থেকে গেলে অযু হবে কি ?

জুতা পালিশের ক্রীম দৌত করার পরেও থেকে গেলে অযু হবে কি
জুতা পালিশের ক্রীম দৌত করার পরেও থেকে গেলে অযু হবে কি

জুতা পালিশের ক্রীম দৌত করার পরেও থেকে গেলে অযু হবে কি ?

জুতা বা অন্য কোন চামড়া যাতিয় বস্তু পালিশ করার সময় জুতা পালিশের ক্রীম নখের নিচে, হাত বা অন্য কোথাও লেগে যায় যা ভালোভাবে পরিষ্কার চেষ্টা করার পরেও পরিষ্কার হয় না।

তাতে মোমের অংশ থাকার কারণে। তাহলে কি তার উপর অজু-গোসল জায়েয হবে? উল্লেখ্য মোম এমন পদার্থ যার নিচে পানি পৌঁছায় না এবং তা পানিকে চুষেও নেয়না।

আজ আমরা উক্ত মাসআলাটি নিয়ে দলিল বিত্তিক আলোচনা করব। ইনশা-আল্লাহ।

 

উল্লেখিত অবস্থায় যদি জুতা পালিশের ক্রীম এর রং এবং কিছু তৈলাক্তকরণ বাকি থাকে তাহলে অযু সহি হয়ে যাবে। যেমন শরীরে তেল লাগানো পর

তার উপর পানি ঢেলে দিলে গড়িয়ে পড়ে যাওয়ার পরেও অজু-গোসল হয়ে যায়।

হ্যা আর যদি শুধু রং এবং তৈলাক্তকরণ বাকি থাকে না বরং ওই জিনিসটাই বাকি থাকে যার কারণে

পানি পৌঁছতে পারেনা তাহলে উযু গোসল কোনটাই জায়েজ হবে না। সঠিকটা আল্লাহ তাআলাই ভালো জানেন।

জুতা পালিশের ক্রীম দৌত করার পরেও থেকে গেলে অযু হবে কি না তার দলিল সমূহ।

(وَيَجِبُ) أَيْ يُفْرَضُ (غَسْلُ) كُلِّ مَا يُمْكِنُ مِنْ الْبَدَنِ بِلَا حَرَجٍ مَرَّةً
– {فَاطَّهَّرُوا} [المائدة: 6]- مِنْ الْمُبَالَغَةِ

يَا أَيُّهَا الَّذِينَ آمَنُواْ إِذَا قُمْتُمْ إِلَى الصَّلاةِ فاغْسِلُواْ وُجُوهَكُمْ وَأَيْدِيَكُمْ إِلَى الْمَرَافِقِ

وَامْسَحُواْ بِرُؤُوسِكُمْ وَأَرْجُلَكُمْ إِلَى الْكَعْبَينِ وَإِن كُنتُمْ جُنُبًا فَاطَّهَّرُواْ

وَإِن كُنتُم مَّرْضَى أَوْ عَلَى سَفَرٍ أَوْ جَاء أَحَدٌ مَّنكُم مِّنَ الْغَائِطِ أَوْ لاَمَسْتُمُ النِّسَاء فَلَمْ تَجِدُواْ مَاء

فَتَيَمَّمُواْ صَعِيدًا طَيِّبًا فَامْسَحُواْ بِوُجُوهِكُمْ وَأَيْدِيكُم مِّنْهُ مَا يُرِيدُ اللّهُ لِيَجْعَلَ عَلَيْكُم مِّنْ حَرَجٍ

وَلَـكِن يُرِيدُ لِيُطَهَّرَكُمْ وَلِيُتِمَّ نِعْمَتَهُ عَلَيْكُمْ لَعَلَّكُمْ تَشْكُرُونَ

হে মুমিনগণ, যখন তোমরা নামাযের জন্যে উঠ, তখন স্বীয় মুখমন্ডল ও হস্তসমূহ কনুই পর্যন্ত ধৌত কর এবং পদযুগল গিটসহ।

যদি তোমরা অপবিত্র হও তবে সারা দেহ পবিত্র করে নাও এবং যদি তোমরা রুগ্ন হও, অথবা প্রবাসে থাক অথবা তোমাদের কেউ প্রসাব-পায় খানা সেরে আসে

অথবা তোমরা স্ত্রীদের সাথে সহবাস কর, অতঃপর পানি না পাও, তবে তোমরা পবিত্র মাটি দ্বারা তায়াম্মুম করে নাও-

অর্থাৎ, স্বীয় মুখ-মন্ডল ও হস্তদ্বয় মাটি দ্বারা মুছে ফেল। আল্লাহ তোমাদেরকে অসুবিধায় ফেলতে চান না;

কিন্তু তোমাদেরকে পবিত্র রাখতে চান এবং তোমাদের প্রতি স্বীয় নেয়ামত পূর্ণ করতে চান-যাতে তোমরা কৃতজ্ঞাতা প্রকাশ কর। সুরা মায়েদা : ৬

তোমার মাথায় কেবল তিন আজলা পানি ঢেলে দিলেই চলবে।

……وَالْأَصْلُ فِيهِ مَا رَوَاهُ مُسْلِمٌ وَغَيْرُهُ عَنْ «أُمِّ سَلَمَةَ قَالَتْ. قُلْت: يَا رَسُولَ اللَّهِ إنِّي امْرَأَةٌ أَشُدُّ ضَفْرَ رَأْسِي

حَدَّثَنَا أَبُو بَكْرِ بْنُ أَبِي شَيْبَةَ، وَعَمْرٌو النَّاقِدُ، وَإِسْحَاقُ بْنُ إِبْرَاهِيمَ، وَابْنُ أَبِي عُمَرَ……عَنْ أُمِّ سَلَمَةَ

قَالَتْ قُلْتُ يَا رَسُولَ اللَّهِ إِنِّي امْرَأَةٌ أَشُدُّ ضَفْرَ رَأْسِي فَأَنْقُضُهُ لِغُسْلِ الْجَنَابَةِ قَالَ

لاَ إِنَّمَا يَكْفِيكِ أَنْ تَحْثِي عَلَى رَأْسِكِ ثَلاَثَ حَثَيَاتٍ ثُمَّ تُفِيضِينَ عَلَيْكِ الْمَاءَ فَتَطْهُرِينَ ‏”‏ ‏.‏

আবূ বকর ইবনু আবূ শায়বা, আমর আন-নাকিদ, ইসহাক ইবনু ইবরাহীম ও ইবনু আবূ উমর (রহঃ) … উম্মু সালামা (রাঃ) থেকে বর্ণিত।

তিনি বলেন, একবার আমি বললাম, ইয়া রাসুলাল্লাহ! আমার মাথার বেনী তো খুবই মোটা এবং শক্ত। আমি কি জানবাতের গোসলের জন্য তা খুলে ফেলব?

তিনি বললেন, না, তোমার মাথায় কেবল তিন আজলা পানি ঢেলে দিলেই চলবে। এরপর তোমার সর্বাঙ্গে পানি ঢেলে দিবে।

এ ভাবেই তুমি পবিত্রতা অর্জন করবে।

وَلَا يَمْنَعُ:الطَّهَارَةَ وَنِيمٌ: أَيْ خُرْءُ ذُبَابٍ وَبُرْغُوثٍ لَمْ يَصِلْ الْمَاءُ تَحْتَهُ وَحِنَّاءٌ: وَلَوْ جُرْمَهُ بِهِ يُفْتَى وَدَرَنٌ وَوَسَخٌ: عَطْفُ تَفْسِيرٍ وَكَذَا دُهْنٌ وَدُسُومَةٌ وَتُرَابٌ: وَطِينٌ وَلَوْ فِي ظُفْرٍ مُطْلَقًا: أَيْ قَرَوِيًّا أَوْ مَدَنِيًّا فِي الْأَصَحِّ بِخِلَافِ نَحْوِ عَجِينٍ.

وَ لَا يَمْنَعُ مَا عَلَى ظُفْرِ صَبَّاغٍ وَ لَا طَعَامٌ بَيْنَ أَسْنَانِهِ أَوْ فِي سِنِّهِ الْمُجَوَّفِ بِهِ يُفْتَى. وَقِيلَ إنْ صُلْبًا مَنَعَ، وَهُوَ الْأَصَحُّ

………………………

 كتاب الدر المختار وحاشية ابن عابدين رد المحتار – فرض الغسل

Facebook Comments

1 Trackback / Pingback

  1. অযুর মধ্যে দাড়ি ধৌত করা এবং খিলাল করার হুকুম । Bangla Islam

Comments are closed.